দিনাজপুরে নতুন আরো ১৫ জনসহ জেলায় মোট  করোনায় আক্রান্ত ৫০৭ জন ।। সুস্থ ২৩২ জন

এ নিয়ে জেলায় মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগির সংখ্যা দাড়ালো ৫০৭ জনে।

দিনাজপুরে নতুন আরো ১৫ জনসহ জেলায় মোট  করোনায় আক্রান্ত ৫০৭ জন ।। সুস্থ ২৩২ জন

মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরো ১৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন ৫০৭ জন। একই সময়ে নতুন ৭ জনসহ এ পর্যন্ত ২৩২ জন সুস্থ হয়ে বাড়ী ফিরেছেন। আর এ পর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। 

দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুছ রবিবার (২১ জুন) রাত পৌঁনে ৯টায় গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন আরো ১৫ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্তের খবরটি নিশ্চিত করেছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগির সংখ্যা দাড়ালো ৫০৭ জনে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে দিনাজপুর সদর উপজেলায় ৩ জন, বিরামপুরে ৭ জন, চিরিরবন্দরে দুইজন, নবাবগঞ্জে দুইজন ও ঘোড়াঘাট উপজেলায় একজন। এছাড়া নতুন আরো ৭ জনসহ এ পর্যন্ত ২৩২ জন সুস্থ হয়েছেন। নতুন স্থদের মধ্যে ফুলবাড়ীতে ৪ জন, বিরলে দুইজন ও কাহারোলে একজন রয়েছে। আর এ পর্যন্ত ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত ৫০৭ জনের মধ্যে পুরুষ ৩৫৮ জন, নারী ১২১ জন ও শিশু ২৮ জন। 

সিভিল সার্জন জানান, রবিবার দিনাজপুর মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাব থেকে ১০৫টি ও টিএমএসএস থেকে একটিসহ মোট ১০৬টি নমুনার ফলাফল পাওয়া গেছে। যার মধ্যে ১৫টি নমুনার ফলাফল পজিটিভ ও বাকী ৯০টি নমুনার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। 

তিনি জানান, করোনায় আক্রান্ত ৫০৭ জনের মধ্যে দিনাজপুর সদর উপজেলায় ১৭০ জন (মৃত একজনসহ), কাহারোলে ১৫ জন, বিরলে ৪১ জন, বোচাগঞ্জে ১৬ জন (মৃত একজনসহ), পার্বতীপুরে ৩৮ জন (একজন মৃতসহ), ফুলবাড়ীতে ১৭ জন, নবাবগঞ্জে ২৯ জন , হাকিমপুরে ৫ জন, খানসামায় ২৮ জন, বিরামপুরে ৪৮ জন, ঘোড়াঘাটে ৩৩ জন (মৃত একজনসহ), চিরিরবন্দরে ৪৬ জন (মৃত ৩ জনসহ) ও বীরগঞ্জ উপজেলায় ২১ জন।

অপরদিকে সুস্থ ২৩২ জনের মধ্যে দিনাজপুর সদর উপজেলায় ৫১ জন, বিরলে ২৭ জন, বোচাগঞ্জে ৯ জন, কাহারোলে ১১ জন, বীরগঞ্জে ১৩ জন, খানসামায় ৬ জন, চিরিরবন্দরে ১২ জন, পার্বতীপুরে ২৮ জন, ফুলকাড়ীতে ১১ জন, বিরামপুরে ১৯ জন, নবাবগঞ্জে ১৫ জন, হাকিমপুরে ৪ জন ও ঘোড়াঘাটে ২৬ জন। এছাড়া হোম আইসোলেশনে রয়েছেন ২৩৫ জন, প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে রয়েছেন ১৮ জন, হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ১৪ জন ও ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানান সিভিল সার্জন ডা. মো. আব্দুল কুদ্দুস।