দিনাজপুরে রাস্তা পাকাকরণের দাবীতে এলাকাবাসি মানববন্ধন 

দিনাজপুরে রাস্তা পাকাকরণের দাবীতে এলাকাবাসি মানববন্ধন 

দিনাজপুরে রাস্তা পাকাকরণের দাবীতে এলাকাবাসি মানববন্ধন 


এএনবি মাহবুবুল হক খান, দিনাজপুর প্রতিনিধি  ঃ দিনাজপুরে রাস্তা পাকাকরণের দাবীতে স্থানীয় এলাকাবাসি মানববন্ধন পালন করেছে। মানববন্ধনে স্থানীয় বাসিন্দা শরিফুল ইসলাম ডন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুল মান্নান, সাজু, মানিক বিভিন্ন গ্রামের নারী, পুরুষ, শিশু ও বৃদ্ধসহ দুই শতাধিক মানুষ অংশগ্রহণ করেন। 
সোমবার (২২ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টা হতে দুপুর ১টা পর্যন্ত আধা ঘন্টাব্যাপী উত্তর চকমধু চৌঘরিয়া গ্রামের নেফাতুল্লাহর বাড়ীর সামনের রাস্তায় এলাকাবাসি এই মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে। এ সময় বক্তব্য রাখেন স্থানীয় বাসিন্দা শরিফুল ইসলাম ডন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুল মান্নান, সাজু, মানিক প্রমূখ। মানববন্ধন থেকে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর র‌্যাব ক্যাম্পের পাশ হতে চকমধু কাগজিয়াপাড়া গ্রাম পর্যন্ত রাস্তাটি দ্রæত পাকাকরণ করার দাবী জানানো হয়।
স্থানীয় এলাকাবাসি জানান, দিনাজপুর শহরের অদূরে কাসিমপুর যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর র‌্যাব ক্যাম্পের পাশ হতে চকমধু কাগজিয়াপাড়া গ্রাম পর্যন্ত রাস্তাটির দৈর্ঘ্য প্রায় দেড় কিলোমিটার। সদর উপজেলার ৫নং শশরা ইউনিয়নের অন্তর্গত শতবর্ষের এই রাস্তাটি দিয়ে চৌঘরিয়া, উত্তর চকমধু, চকমধু, মহতুল্লাপুর, খুনিয়াপাড়া, ফুলতলাসহ ৬/৭ টি গ্রামের প্রায় ৬/৭ হাজার মানুষ দিনাজপুর শহরে যাতায়াত করে। এসব গ্রামের ছাত্রছাত্রীরা প্রতিদিন কাসেমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, কাসেমপুর উচ্চ বিদ্যালয়, কাসেমপুর মাদরাসাসহ দিনাজপুর শহরের বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করে। এছাড়া বিভিন্ন সরকারী-বেসরকারী দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ এই রাস্তা দিয়ে দিনাজপুর শহরে যাতায়াত করে। এই রাস্তার পাশে রয়েছে ঈদগাহ মাঠ, যুব উন্নয়ন অফিস সংলগ্ন সরকারপুকুর কবরস্থান।    
কিন্তু দীর্ঘদিন ধরে পাকাকরণ না করায় বর্তমানে এই রাস্তাটি চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। পুরো দেড় কিলোমিটার রাস্তা খানাখন্দে ভরে গেছে। বর্ষা মৌসুমে সামান্য বৃষ্টি হলে সৃষ্ট গর্তে এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করা না। এই রাস্তা দিয়ে চলাচলের সময় ট্রাক, ট্রাক্টর, অটোরিক্সা, মোটরসাইকেল, বাইসাইকেলসহ বিভিন্ন যানবাহন গর্তে পড়ে যায়। এতে অনেকেই আহত হয়েছেন। বিশেষ করে কোন রোগি অথবা গর্ভবর্তী মাকে নিয়ে রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় তাদের অবস্থা আরো অবনতি হয়ে পড়ে। এছাড়া কোন মৃত মানুষকে দাফন করার জন্য খাটিয়া নিয়ে চলাচল করাও খুবই কষ্টকর হয়ে পড়ে। ফলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় এসব গ্রামের মানুষকে।
এলাকাবাসি জানান, জাতীয় সংসদের হুইপ ও দিনাজপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য ইকবালুর রহিম এমপি’র সহযোগিতায় এই রাস্তাটি ২/৩বার টেন্ডার ও বাজেট পাশ হয়েছে। কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দা নেফাতুল্লাহর দুই ছেলে হাসান আলী ও হামিদুর রহমানের বাধার মূখে রাস্তাটি পাকাকরণের কাজ বন্ধ হয়ে গেছে। নেফাতুল্লাহর বাড়ীর সামনের ৬০/৭০ ফিট জায়গা নিজেদের বলে দাবী করে রাস্তার উন্নয়ন কাজ বন্ধ করে দেয় তার দুই ছেলে। নেফাতুল্লাহর এক ছেলে হাসান আলী ঢাকায় পুলিশ সদর দপ্তরে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী হিসেবে কর্মরত। হাসান আলী পুলিশ সদর দপ্তরের প্রভাব খাটিয়ে রাস্তার উন্নয়ন কাজ বন্ধ করে দিয়েছে। এমনকি রাস্তার কাজ বন্ধে একটি মামলাও করেছে। ফলে বর্তমানে রাস্তা পাকাকরণের কাজ বন্ধ রয়েছে। আর এতে করে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীসহ এসব গ্রামের ৬/৭ হাজার মানুষ।
রাস্তাটি দ্রæত পাকাকরণ কাজ সম্পন্ন করতে দিনাজপুর জেলা প্রশাসকসহ উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করা হবে বলে মানববন্ধন থেকে জানানো হয়। মানববন্ধনে স্থানীয় বাসিন্দা শরিফুল ইসলাম ডন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. আব্দুল মান্নান, সাজু, মানিক, আজাদ, আইনুল হক, আমিনুল ইসলাম, নুরুজ্জামান, রেজাউল ইসলাম, শাহ আলম, লিটন, মতিয়ার রহমানসহ এসব গ্রামের নারী, পুরুষ, শিশু ও বৃদ্ধসহ দুই শতাধিক মানুষ অংশগ্রহণ করেন।